ডাকাতির করতে গিয়ে অস্ত্রসহ যুবলীগের নেতাসহ নয়জন গ্রেপ্তার

ঢাকার আশুলিয়ায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে বিপুল দেশীয় অস্ত্রসহ ধামসোনা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হোসেনসহ নয়জন গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‍্যাব-৪।গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন ধামসোনা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হোসেন (৩৮), তাঁর সহযোগী রিপন মিয়া (৩০), সানোয়ার হোসেন পাঠান (৩৫), লিটন রেজা ওরফে রাজা (৩৪), সাইফুল ইসলাম (৩২), আহাদ আলী (৩৮), আশরাফ আলী (৪০), আল আমিন (২৫) ও  রোকনুজ্জামানকে (৩৪)।

আজ সোমবার সকালে তাদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব-৪ সিপিসি ২-এর কোম্পানি কমান্ডার রাকিব মাহমুদ খান।কোম্পানি কমান্ডার রাকিব মাহমুদ খান জানান, আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়নের পাবনারটেক এলাকায় একদল ডাকাত সদস্য ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে-এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ধামসোনা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হোসেনসহ নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত পাঁচটি হাঁসুয়া, একটি রাম দা, একটি করাত, একটি চাইনিজ কুড়াল, ২৬৬ পিস ইয়াবা, এক ক্যান বিয়ার, ১১টি মোবাইল ফোনসেট এবং নগদ ১৯ হাজার ৭২৫ টাকা জব্দ করা হয়।

তারা সংঘবদ্ধ হয়ে সাভার, আশুলিয়া, ধামরাইয়ের বিভিন্ন স্থানে যানবাহনে ডাকাতি করে আসছিলেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় মামলা করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে ।এলাকাবাসীর অভিযোগ, আশুলিয়া থানার ধামসোনা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর থেকেই সানোয়ার হোসেন এলাকায় চাঁদাবাজি, ডাকাতি, ছিনতাই, মাদক ব্যবসাসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করে আসছিলেন। এলাকাবাসী তার কঠোর শাস্তি দাবি করেছে। তাকে গ্রেপ্তার করায় এলাকাবাসী সন্তোষ প্রকাশ করেছে।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার ও যুগ্ম আহ্বায়ক মঈনুল ইসলাম ভুঁইয়া বলেন, আটক হওয়া যুবলীগনেতার বিরুদ্ধে তারা সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিয়েছেন। তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ সময় তারা আরও বলেন, আশুলিয়া থানা যুবলীগে কোনো অপরাধীর স্থান নেই।