লাইন মেরামতে খরচের টাকা না দেয়ায় ফিরে গেলেন বিদ্যুৎকর্মীরা

অবশেষে ছিঁড়ে যাওয়ার ৫ ঘণ্টা পর এলটি লাইন মেরামত করতে এসে খরচের টাকা চাইলেন বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন। মেরামত টিমের আব্দুর রাজ্জাক স্থানীয় লোকজনের কাছে এ টাকা দাবি করেন। পরে লোকজন টাকা দিতে অস্বীকার করায় তারা মনঃক্ষুণ্ন হয়ে চলে যান।স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, বিদ্যুৎ লাইনে কোন সমস্যা হলে অফিসে জানালেও আসতে চায় না। যে এলাকার লোকজন ঠিকমতো টাকা দেয় সেখানে তাড়াতাড়ি যায়। আজ প্রায় ৫ ঘণ্টা ধরে লাইন ছিঁড়ে ছিল। অফিসের লোকজন ফোন ধরেনি। আমরা গ্রাহক। টাকা দিয়ে বিদ্যুৎ চালাই। লাইন মেরামত করতে এসে রাজ্জাকসহ আরও একজন খরচের টাকা চায়। এই টাকা গ্রাহকদের কাছ থেকে চাঁদা তুলে দিতে হবে।এ বিষয়ে ভূঞাপুর বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মেহেদী হাসান ভূঁইয়া বলেন, মেরামতের জন্য কোনও টাকা নেয়ার কথা না। যদি কেউ টাকা চেয়ে থাকে, তাহলে আমি বিষয়টি দেখব উল্লেখ্য, এর আগে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসী বাজারের ২০০ কেভি ট্রান্সফরমারের এ লাইনটি পড়ে থাকার বিষয়ে স্থানীয় লোকজন কন্ট্রোল রুমের নির্দিষ্ট মোবাইল নম্বরে টানা দুই ঘণ্টা ফোন দিলেও কেউ তা রিসিভ করেননি। পরে রাত ১০টার পর আসে লাইন মেরামত করতে।